দিল্লিতে তাবলিগের প্রায় আড়াই হাজার সদস্যকে ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ

তাবলিগ জামাতের দুই হাজার ৪৪৬ সদস্যকে কোয়ারেন্টিন থেকে ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে ভারতের দিল্লি সরকার।

শনিবার দিল্লি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের (ডিডিএমএ) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কেএস মীনা এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশিকা জারি করেন। খবর রেডিও তেহরানের।

জেলা কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো ওই নির্দেশে দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজে অন্যান্য রাজ্য থেকে অংশ নেয়া জামাতের প্রতিনিধিদের তাদের বাসায় পাঠানোর ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে।

এতে সব জেলা কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় নির্দেশসহ তাবলিগ সদস্যরা বাড়ি ছাড়া যাতে অন্য কোথাও না অবস্থান করেন তাও নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তারা অবশ্য জানিয়েছেন, গত মার্চ মাসে দিল্লির নিজামুদ্দিনের অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া ৫৬৭ বিদেশিকে পুলিশে হস্তান্তর করা হবে।

সরকারি এক কর্মকর্তা বলেন, ‘ভিসা লঙ্ঘনের মতো বিভিন্ন বিধি লঙ্ঘনের জন্য তাদের (বিদেশি তাবলিগ জামাত সদস্য) পুলিশের হাতে হস্তান্তর করা হবে।’

সম্প্রতি দিল্লির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষ করা এবং যাদের মধ্যে করোনা ধরা পড়েনি এমন তাবলিগ জামাত সদস্যদের বাসায় ফেরার কথা বলেন।

শনিবার দিল্লির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা দিল্লি বাদে অন্য জায়গার বাসিন্দাদেরকে নির্ধারিত নির্দেশিকা অনুযায়ী তাদেরকে ছেড়ে দিতে কোয়ারেন্টিন সেন্টার থেকে বেরোনোর জন্য পাস দেয়ার কথা বলেছেন।

কিন্তু কোনও অবস্থাতেই তাবলিগ সদস্যদের মসজিদসহ অন্য কোথাও থাকতে দেয়া হবে না বলেও জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ মার্চ দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজে তাবলিগ জামাতের জমায়েতকে কেন্দ্র করে ভারত সরকার এবং তাদের পক্ষপাতদুষ্ট মিডিয়া একচেটিয়াভাবে মুসলমানদের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রচার করতে থাকে। ফলে ভারতীয় মুসলমানরা এক প্রকার হুমকির মধ্যে রয়েছে।

এ ঘটনার ফলে হিন্দু মুসলমানদের মাঝে সহিংসতা বৃদ্ধি পায় এবং ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে মুসলমানদের ওপরে অসহনীয় অত্যাচার ও নিপীড়ন চলতে থাকে। ভারতে করোনা আক্রান্ত মুসলমানদের স্বাস্থ্যসেবা পর্যন্ত দেয়া হচ্ছে না বলেও অভিযোগ রয়েছে।

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ