জুড়ীতে ভাতা নিতে ব্যাংকের সামনে প্রবীণদের ভিড়, ঝুঁকি

করোনাভাইরাসের কারণে সবচেয় ঝুঁকিতে রয়েছেন বয়স্করা। এখন পর্যন্ত বিশ্বে এই ভাইরাসে বয়স্কদের মৃত্যুর হারই বেশি। তবে ঝুঁকি উপেক্ষা করে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার বয়স্ক ব্যক্তিদের ঘর থেকে বেরিয়ে আসতে হয়েছে। বয়স্ক ভাতার জন্য লাইতে দাঁড়াতে হয়েছে। যেখানে মানা হচ্ছে না সামাজিক দুরত্বের নির্দেশনা।

শুক্রবার জনতা ব্যাংকের জুড়ী উপজেলা শাখার সামনে গিয়ে দেখা যায়, বয়স্ক ভাতার জন্য ভীড় করেছেন কয়েকশ’ প্রবীণ ব্যক্তি। গাদাগাদি করে লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন তারা। মানছেন না শারিরীক দুরত্ব। কারো মুখে ছিলো না মাস্কও।

ব্যাংক সূত্রে জানা যায়,উপজেলার ৬ টি ইউনিয়নের যারা বয়স্ক, প্রতিবন্ধি এবং বিধবা ভাতা পান তাদেরকে পর্যায়ক্রমে ইউনিয়নভিত্তিক ভাতা বিতরণ করা হচ্ছে। শুক্রবার  পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়নের প্রায় সাড়ে ৯০০ মানুষকে ভাতা প্রদান করা হয়। ভাতা নিতে সবাইকে জনতা ব্যাংক জুড়ী শাখায় আসার নির্দেশনা দেওয়া হয়। সে অনুযায়ী সবাই সকাল থেকে এসে ভিড় করেন।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শ্রীকান্ত দাস বলেন, সামনে ঈদ তাই সবাই ভাতা নিতে এসেছে। আমি ম্যানেজার সাহেবকে বলেছিলাম ইউনিয়নে এসে ভাতা দিতে সেখানে বড় মাঠ ছিল কিন্তু নিরাপত্তার স্বার্থে তিনি ব্যাংকে থেকে সবাইকে টাকা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন।

জনতা ব্যাংক জুড়ী শাখার ম্যানেজার শৈলেন্দ শর্মা বলেন, আমরা ভাতা দিচ্ছি। ভাতা নিতে লোক  আসবে। এতে  জনসমাগম তো হবেই।

এ বিভাগের আরো সংবাদ