‘করোনার ঝুঁকিকে হালকা করে দেখেছিল ট্রাম্প প্রশাসন’

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব নিয়ে সতর্ক করার পরেও ট্রাম্প প্রশাসন তা হালকা করে দেখেছেন বলে অভিযোগ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের বায়োমেডিকেল অ্যাডভান্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অথরিটির চাকরিচ্যুত পরিচালক রিক ব্রাইট।

তিনি বলেন, জানুয়ারিতেই করোনা নিয়ে আমি সতর্ক করেছিলাম। কিন্তু জবাবে স্বাস্থ্য ও মানবসেবা বিষয়কমন্ত্রী অ্যালেক্স আজারের কাছ থেকে বৈরী আচরণ পেয়েছি। উচ্চপদস্থ অন্যান্য কর্মকর্তারাও তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন।-খবর রয়টার্সের

এ বিষয়ে ইউএস অফিস অব স্পেশাল কাউন্সিলে একটি অভিযোগ দাখিল করেন রিক ব্রাইট। তার আইনজীবী বলেন, মহামারীর নিয়ন্ত্রণে জরুরি সমাধান বের করতে কাজ করছিলেন তার মক্কেল। কিন্তু অ্যালেক্স আজারসহ এইচএইচএস নেতৃবৃন্দের কাছ থেকে তিনি বাধার সম্মুখীন হন।

এই আইনজীবী বলেন, করোনায় বিপর্যয়ের হুমকিকে তুচ্ছ করে দেখছিলেন মার্কিন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। কোভিড-১৯ মহামারীতে যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত ৭০ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। প্রাণহানির হিসাবে যেটা বিশ্বের সর্বাধিক।

ভাইরাসের হুমকিকে হালকা করে দেখায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনা করেছেন ডেমোক্রেটিক ও রিপাবলিকান রাজনীতিবিদরা। এছাড়া পরীক্ষা ও সুরক্ষা উপকরণ প্রস্তুতেও ধীর গতির অভিযোগ রয়েছে ট্রাম্প প্রশাসনের বিরুদ্ধে।

ব্রাইটের আইনজীবীর যুক্তি, বায়োমেডিকেল অ্যাডভান্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অথরিটির পরিচালকের পদ থেকে তার মক্কেলকে অপসারণে সরকারি হুইসল ব্লোয়ার সুরক্ষা আইনের লঙ্ঘন ঘটেছে।

রিক ব্রাইটের দাবি, করোনাভাইরাস নিয়ে সতর্ক করার পর তাতে গা না করে কর্তৃপক্ষ উল্টো তার বিরুদ্ধেই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের এ বায়োমেডিকেল অ্যাডভান্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট দেশটির স্বাস্থ্য ও মানবসেবা মন্ত্রণালয়ের (এইচএইচএস) অধীন।

এক বিবৃতিতে এইচএইচএসের মুখপাত্র কেইটলিন ওকল জানিয়েছেন, ব্রাইটকে বায়োমেডিকেল অ্যাডভান্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট থেকে সরিয়ে ভাইরাস শনাক্তে পরীক্ষা কিট উদ্ভাবন ও সমৃদ্ধের অন্য দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তিনি আমেরিকান জনগণ ও সংকটকালীন এ মুহূর্তে কাজে যোগ না দিয়ে আমাদের হতাশ করেছেন।

এর আগে গত মাসে এক বিবৃতিতে ব্রাইট বলেছিলেন, করোনাভাইরাসের ওষুধ হিসেবে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ও অন্যান্য ক্লোরোকুইনের ব্যবহার নিয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের অবস্থানের বিরোধীতা করায় তাকে নিচের পদে নামিয়ে দেয়া হয়েছে।

তার অভিযোগ, বিজ্ঞানভিত্তিক কোনো প্রমাণ না থাকা সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রের সরকার ওই ওষুধগুলোকে মহৌষধ হিসেবে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছিল।

ব্রাইটকে আগামী ১৪ মে কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের একটি প্যানেলের শুনানিতে উপস্থিত হতে হবে বলে তার মুখপাত্র জানিয়েছেন। টিকা ও প্রতিষেধক বিশেষজ্ঞ ব্রাইট ২০১৬ সালে বায়োমেডিকেল অ্যাডভান্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের পরিচালক পদে নিয়োগ পান।

এ বিভাগের আরো সংবাদ