প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা ৬ মাসের বকেয়া উপবৃত্তি পেতে যাচ্ছে

সারাদেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টানা ৬ মাসের বকেয়া উপবৃত্তির অর্থ দেবে সরকার।

উপবৃত্তির পাশাপাশি এসব শিক্ষার্থীদের জামা, জুতা ও ব্যাগ কেনার জন্য বছরের শুরুতে এক হাজার করে টাকাও দেয়া হবে।

করোনার এই দুর্দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত হস্তক্ষেপে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এবার এই অর্থ পাচ্ছে বলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে।

উপবৃত্তি প্রদান প্রকল্পের (তৃতীয় পর্যায়) পরিচালক যুগ্মসচিব মো. ইউসুফ আলী মঙ্গলবার সারাদেশের সব উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে এ বিষয়ে চিঠি দিয়েছেন।

সেখানে প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তির প্রকল্পের মেয়াদ ২০২১ সাল পর্যন্ত বাড়ানোর কথা জানিয়ে এক আদেশ জারি করা হয়েছে।

সেই আদেশে বলা হয়েছে, প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রদান প্রকল্পের তৃতীয় পর্যায়ের দ্বিতীয় সংশোধনী প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিয়েছেন। সে অনুযায়ী প্রকল্পের মেয়াদ ২০২১ সাল পর্যন্ত চলমান থাকবে।

সরকার করোনাকালীন সময়ে প্রান্তিক জনগণের মধ্যে গত জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত তৃতীয় ও চতুর্থ কিস্তির উপবৃত্তির অর্থ একসঙ্গে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রমজানের ঈদের আগেই উপবৃত্তির অর্থ সুবিধাভোগীদের মোবাইলে পাঠাতে চায় সরকার। ১৪ মে’র মধ্যে উপবৃত্তির সুবিধাভোগীর তালিকা রূপালী ব্যাংকের শিওর ক্যাশের পোর্টালে আপলোডে ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্ট উপজেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এছাড়া আরও বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী বছরের প্রথমেই প্রতি শিক্ষার্থীকে জামা, জুতা ও ব্যাগ কিনতে এক হাজার টাকা করে কিউ অ্যালাউন্স দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর থেকে জানা গেছে, প্রতি কিস্তিতে তিনমাসের অর্থ একসঙ্গে দেয়া হয়। এবার ছয়মাস বকেয়া থাকায় ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের তৃতীয় ও চতুর্থ কিস্তির টাকা একসঙ্গে দেয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, সারাদেশের প্রায় এক কোটি ৪০ লাখ প্রাথমিক শিক্ষার্থীরা গত অক্টোবর থেকে উপবৃত্তির অর্থ থেকে বঞ্চিত হচ্ছিল। এখন রোজার ঈদের আগেই শিক্ষার্থীরা এক সঙ্গে উপবৃত্তির ছয় মাসের টাকা পাবে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ