আইসিটি মামলায় কারাগারে সাংবাদিক কাজল

অনুপ্রবেশের অভিযোগে বিজিবির করা মামলায় জামিন পেলেও রাজধানীতে হওয়া আইসিটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। তবে, প্রাথমিকভাবে তাকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রোবাবার (৩ মে) জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মঞ্জুরুল ইসলামের আদালত এ আদেশ দেন। এর আগে গত ১০ মার্চ থেকে নিখোঁজ সাংবাদিক কাজলকে আজ ভোর রাত ৩টার দিকে বেনাপোল সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে বিজিবি।

পরে অবৈধভাবে দেশে প্রবেশের অভিযোগে বিজিবি তার বিরুদ্ধে মামলা করা হলে সাংবাদিক কাজলকে যশোর আদালতে পাঠায় বেনাপোল বন্দর থানা পুলিশ। পরে কাজলকে নিয়ে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আদালতের উদ্দেশে রওনা দেয় বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ। বিকাল পাঁচটার দিকে তাকে আদালতে তোলা হলে বিজিবির মামলায় তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত। তবে রাজধানীতে হওয়া আইসিটি মামলায় কাজলকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

প্রসঙ্গত, সাংবাদিক কাজল ১০ মার্চ সন্ধ্যায় ‘পক্ষকাল’-এর অফিস থেকে বের হন। এরপর থেকে তার কোনো সন্ধান না পেয়ে পরদিন চকবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন তার স্ত্রী জুলিয়া ফেরদৌসি নয়ন। ১৩ মার্চ জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে শফিকুল ইসলাম কাজলকে সুস্থ অবস্থায় ফেরত দেওয়ার দাবি জানায় তার পরিবার।

১৮ মার্চ প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচির মাধ্যমে সাংবাদিক কাজলের সন্ধান চাওয়া হয়। পরে কাজলকে অপহরণ করা হয়েছে অভিযোগ এনে সে রাতে চকবাজার থানায় মামলা করেন তার ছেলে মনোরম পলক।

সাংবাদিক কাজল নিখোঁজ হওয়ার পর তার সন্ধানের দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে কয়েক দফা কর্মসূচি পালন করেছেন সাংবাদিক সহকর্মী ও পরিবারের সদস্যরা।

এ বিভাগের আরো সংবাদ