পাঞ্জাবে ১৭৩ শিখ তীর্থযাত্রীর করোনাভাইরাস শনাক্ত

যুগান্তর ডেস্ক :

ভারতে মহারাষ্ট্র থেকে পাঞ্জাবে ফিরে যাওয়া ১৭৩ শিখ তীর্থযাত্রী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এই সংক্রমণ পাঞ্জাবের জন্য ব্যাপক প্রতিকূলতা বাড়াবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।-খবর এনডিটিভির

দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণার মধ্যেই মহারাষ্ট্রের ন্যানডিডে গুরুদুয়ারা হাজুর সাহিবে আটকা পড়েছিলেন শিখ তীর্থযাত্রীরা।

গত ২২ এপ্রিল থেকে তারা পাঞ্জাবে ফিরতে শুরু করেন। কিন্তু তাদের কোয়ারেন্টিনে রাখার নির্দেশ আসে আরও পাঁচদিন পর।

এসব তীর্থযাত্রীকে সঠিকভাবে কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত না করায় পাঞ্জাবের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলবর সিং সিধুর বিরুদ্ধে সমালোচনা শুরু হয়েছে। কিন্তু তিনি পুরো দায় চাপিয়ে দিচ্ছেন মহারাষ্ট্র সরকারের ওপর।

রাজ্যটিতে ক্ষমতাসীন শিব সেনার নেতৃত্বাধীন জোটে সিধুর দল কংগ্রেসও রয়েছে। বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, মহরাষ্ট্র সরকার তীর্থযাত্রীদের কোনো সহায়তা করেনি। তাদের নিজেদের ওপর ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

পাঞ্জাব থেকে ন্যানডিডের গুরুদুয়ারায় প্রায় চার হাজার তীর্থযাত্রী গিয়েছিলেন। এরপর ২৫ মার্চ লকডাউন কার্যকর করা হলে তারা আটকা পড়ে যান। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অনুমোদনের পর সাড়ে তিন হাজার তীর্থযাত্রী পাঞ্জাবে ফিরে আসেন।

অকাল তখতের জথেদার হারপ্রিত সিং বলেন, এখানে এমন প্রপাগান্ডা চালানো হচ্ছে যে তখতের শ্রী হাজুর সাহিব করোনাভাইরাসের উৎসস্থল। মনে হচ্ছে, এসব লোকজন পাঞ্জাবে ভাইরাসটি বহন করে নিয়ে এসেছেন। এটা বিরাট ষড়যন্ত্র।

এদিকে এ ঘটনার প্রেক্ষাপটে তখতে হাজুর সাহিব সাচখান্ড গুরুদুয়ারা ও গুরুদুয়ারা লঙ্গর সাহিব শুক্রবার সিলগারা করে দেয়া হয়েছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ