কুমিল্লায় করোনা আক্রান্ত হোমিও চিকিৎসকের মৃত্যু

কুমিল্লায় নতুন করে আরও নয়জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে জেলার দেবীদ্বারে ছয়জন এবং একজন করে শনাক্ত হয়েছেন ব্রাহ্মণপাড়া, মুরাদনগর ও দাউদকান্দি উপজেলায়।

দেবীদ্বারে করোনায় আক্রান্ত ছয়জনের মধ্যে সুকুমার চন্দ্র দে নামে একজন হোমিও চিকিৎসক বৃহস্পতিবার সকালে মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান সাংবাদিকদের এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন বলেন, এ নিয়ে জেলায় সর্বমোট আক্রান্ত হয়েছেন ৭৭ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন তিনজন। আক্রান্ত ৭৭ জনের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন নয়জন। এ পর্যন্ত করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে এক হাজার ৬৯৪ জনের। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত রিপোর্ট এসেছে এক হাজার ৪৯৩ জনের।

দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আহমেদ কবীর বলেন, এই উপজেলায় নতুন শনাক্ত হওয়া ছয়জনের মধ্যে সুকুমার নামের একজন হোমিও চিকিৎসক বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা সদরের নিজ বাসায় মারা গেছেন। এর আগে বুধবার তার হোমিও হলটি লকডাউন করা হয়েছিল। তিনি বৃহস্পতিবার সকালে মারা যাওয়ার পর তার বাসাসহ আশপাশে কয়েকটি বাসা ও দোকান লকডাউন করা হয়। তিনি ছাড়াও নতুন করে বাগুর এলাকার আরও চারজন এবং নবিয়াবাদ এলাকার আরও একজন আক্রান্ত হওয়ার কারণে আক্রান্তদের ঘর-বাড়ি লাকডাউন করা হয়েছে।

দেবীদ্বার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রাকিব হাসান বলেন, বর্তমানে এই উপজেলায় ১৪ জন করোনা পজিটিভ রোগী রয়েছেন। এদের মধ্যে ১৩ জনই বড়কামতা ইউনিয়নের নবীয়াবাদ ও বাগুর এলাকার। এছাড়াও এরই মধ্যে ওই এলাকার বাসিন্দা জীবনকৃষ্ণ সাহা ও শাহ জালাল মেম্বার করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। তাই উপজেলার মধ্যে ওই এলাকাটিকে হটস্পট হিসেবে দেখছি আমরা। সেখানকার লোকজনের যাতায়াত নিয়ন্ত্রণ করতে বলা হয়েছে। নতুন করে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে আক্রান্তদের ঘরবাড়ি লকডাউন করার পাশাপাশি লোকজনকে ঘরে থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আক্রান্তদের পরিবারের জন্য উপজেলা প্রশাসন থেকে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী সরবরাহ করা হচ্ছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ