২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে আরও ৬ জন আক্রান্ত

গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে বিভাগে নতুন করে আরও ৬ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে দুইজন সুনামগঞ্জ জেলার ও চারজন হবিগঞ্জ জেলার। মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) এই দুই জেলার প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্য অনুযায়ী এ খবর জানা যায়।

হবিগঞ্জের নতুন শনাক্ত হওয়া চারজনের নমুনা পরীক্ষা করা হয় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে স্থাপিত পিসিআর ল্যাবে। এছাড়া সুনামগঞ্জে নতুন শনাক্ত হওয়া দুইজনের নমুনা পরীক্ষা করা হয় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত ল্যাবে।

সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলায় দুইজনের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে একজন পুরুষ অন্যজন নারী। আক্রান্ত দুইজনই ধর্মপাশা সদর ইউনিয়নের কান্দাপাড়া ও হলিদাকান্দা গ্রামের বাসিন্দা। আক্রান্ত নারী সম্প্রতি নায়ারণগঞ্জ থেকে নিজ গ্রামে এসেছেন।

মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) ধর্মপাশা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ঝন্টু সরকার মঙ্গলবার রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার পর্যন্ত ৫টি ধাপে এ উপজেলা থেকে মোট ৪৩ জন রোগীর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এর মধ্যে দুইজন রোগীর নমুনায় করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়। এ নিয়ে সুনামগঞ্জে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২৮ জনে দাঁড়ালো।

ধর্মপাশা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ঝন্টু সরকার বলেন, দুজনের নমুনায় করোনাভাইরাস পাওয়া গিয়েছে। আমরা তাদের আইসোলেশনে নিয়ে আসার ব্যবস্থা করছি।

হবিগঞ্জ : হবিগঞ্জের আরও চারজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ৮০ জনের পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে চারজনের পজিটিভ আসে।

হবিগঞ্জের ডেপুটি সিভিল সার্জন মুখলিছুর রহমান উজ্জ্বল বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ চার জনের মধ্যে লাখাই উপজেলার ৩ জন, সদর উপজেলার ১ জন রয়েছেন। এদের মধ্যে ২ জন নারী ও ২ জন পুরুষ, তাদের বয়স ২৩ থেকে ৫০ এর মধ্যে। এ নিয়ে হবিগঞ্জে মোট আক্রান্ত ৫২ জন।

প্রসঙ্গত, সিলেট বিভাগে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১০৭ জনে। তাদের মধ্যে সিলেট জেলায় ১৪ জন, হবিগঞ্জে ৫২ জন, মৌলভীবাজারে ১৩ জন ও সুনামগঞ্জে ২৬ জন। আক্রান্তদের মধ্যে সিলেটের এক চিকিৎসক, মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার ১ প্রবীণ ব্যক্তি ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি (তিনি ঢাকায় করোনা শনাক্তের পর সেখানে মৃত্যু হলেও হিসাব আসে মৌলভীবাজারের সাথে) এবং হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার চন্ডিছড়া চা বাগানের শ্রমিকের পাঁচ বছরের এক শিশু সন্তানসহ চার জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া সিলেট বিভাগে দুইজন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

(প্রতিবেদন তৈরিতে তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছেন জেলা প্রতিনিধি সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ)।

এ বিভাগের আরো সংবাদ