ব্রিটেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে বললেন ডা. আবদুল মাবুদের ছেলে

যুগান্তর ডেস্ক :

করোনা নিয়ন্ত্রণে সরকারের ঘাটতি ও ভুল স্বীকার করে ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকককে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রয়াত চিকিৎসক ডা. আবদুল মাবুদ চৌধুরীর ছেলে।

দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা এনএইচএসের ইউরোলজির চিকিৎসক ছিলেন আবদুল মাবুদ চৌধুরী (৫৩)। কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে চলতি মাসের শুরুর দিকে পূর্ব লন্ডনের কুইন্স হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়েছে।

এর আগেই বৈশ্বিক মহামারী প্রতিরোধের লড়াইয়ে থাকা স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সরঞ্জামের ঘাটতি থাকার কথা বলে সতর্ক করেছিলেন তিনি।

এই চিকিৎসকের ছেলে ইনতিসার চৌধুরী বলেন, জনগণের কাছে ক্ষমা চাইলে তাদের আস্থার উন্নতি হবে।

পরবর্তী সময়ে এলবিসি রেডিওকে হ্যানকক বলেন, ভাইরাসটির প্রতিরোধে সামনে থেকে যারা নেতৃত্ব দিচ্ছেন, তাদের পরামর্শে সরকারের কাজের বেশ উন্নতি হয়েছে।

তবে যারা স্বাস্থ্যকর্মীদেরকে ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ (পিপিই) পেতে সহায়তা করছেন, তাদের কাজটিকে খাটো করতে চাননা তিনি।

এলবিসি রেডির ওই অনুষ্ঠানের ফোনে সরাসরি যুক্ত হয়েছিলেন ইনতিসার চৌধুরী। ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে বলেন, সরকার এটি নিখুঁতভাবে মোকাবেলা করতে পারবে, এটা জনগণ আশা করে না। আমরা শুধু চাইছি, অনেক ভুলভ্রান্তি যে রয়েছে, সেটা আপনি খোলাখুলি স্বীকার করবেন।

তিনি বলেন, প্রকাশ্যে ভুল স্বীকার করা মানে কোনো অপরাধ স্বীকার করা নয়, এটি বরং আপনাকে আরও বেশি মানবিক করবে। অনুগ্রহ করে আপনি কি আমার জন্য আজকের সংবাদ সম্মেলনে প্রকাশে ক্ষমা চাইবেন?

ইনতিসারের প্রশ্নের জবাবে হ্যানকক বলেন, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে, পরিস্থিতির কিভাবে আরও উন্নতি করা যায় সে বিষয়ে আমরা প্রতিনিয়তই শিখছি। আমি মনে করি আমাদের উন্নতির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে, সামনে যারা আছেন, তাদের কথা শোনা।

এর আগে বিবিসি ফোর রেডিওর টুডে অনুষ্ঠানে এসে ইনতিসার বলেছেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর কাছে ব্যক্তিগতভাবে ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টি মন্ত্রীদের বিবেচনা করা উচিত। কিন্তু এই মুহূর্তে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইলে জনগণের আস্থা বাড়বে।

ব্রিটেনের বাংলাদেশি কমিউনিটিতে সুপরিচিত মুখ আবদুল মাবুদ চৌধুরী গত ২৩ মার্চ হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পাঁচ দিন আগে কোভিড-১৯ প্রতিরোধে সামনের কাতারে থাকা ডাক্তার/নার্স/স্বাস্থ্য কর্মীদের ঝুঁকির কথা তুলে ধরেন তিনি। তাদের রক্ষার জন্য বরিস জনসনকে উদ্দেশ্য করে ফেইসবুকে পোস্ট দেন এই চিকিৎসক।

এ বিভাগের আরো সংবাদ