পাইকারি বাজারে আদা ১৫০ টাকা দরে বিক্রির নির্দেশ

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাজধানীর শ্যামবাজারে অভিযান পরিচালনা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর।

শনিবার এ অভিযান পরিচালনা করেন অধিদফতরের উপপরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার ও মো. মাসুম আরেফিন। এ সময় আদার উচ্চমূল্য নিয়ন্ত্রণে তদারকি করা হয়।

সঙ্গে আমদানি মূল্যের সমন্বয় করে পাইকারি বাজারে প্রতি কেজি আদা ১৫০ টাকা দরে বিক্রয়মূল্য নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে।

এর বেশি দামে বিক্রি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া এ সময় মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় সেখানকার এক প্রতিষ্ঠানকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এ দিকে মূল্য কারসাজি, নিত্যপণ্যের মূল্য তালিকা সংরক্ষণ না করা ও ধার্যকৃত মূল্যের বেশি মূল্যে নিত্যপণ্য বিক্রয় করার দায়ে সারা দেশের পাইকারি ও খুচরা বাজারে ২৩৮ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ৪ লাখ ২০ হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের উপপরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার যুগান্তরকে বলেন, গত কয়েকদিনে প্রতি কেজি আদার আমদানি মূল্য ৯৭ টাকা।

সব খরচ মিলে চট্টগ্রামে হয়তো ১২০ টাকা হতে পারে; যা যৌক্তিক। সেহেতু ঢাকায় এ আদার দাম ১২৫-১৩০ টাকার বেশি হওয়ার কথা নয়; কিন্তু এখানে ২০০ টাকার ওপরে বিক্রির অভিযোগ আছে।

তিনি জানান, আমদানিকারকরা অসাধুভাবে মুনাফা করবে তা হতে পারে না। ভোক্তার স্বার্থে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ