সুনামগঞ্জে চিকিৎসক-শিশুসহ আরও ৮জন করোনায় আক্রান্ত

সুনামগঞ্জের করোনাভাইরাসে এক চিকিৎসকসহ নতুন করে আরও ৮ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৬ জন পুরুষ ও ২ জন শিশু। এ নিয়ে সুনামগঞ্জে মোট করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা পৌছালো ১৪।

শুক্রবার সকালে সুনামগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা. শামস উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে করোনা আক্রান্ত সংখ্যা দ্বিগুন হয়ে যাওয়ায় সবাইকে বাসায় অবস্থান করার পরামর্শ দিয়েছেন সিভিল সার্জন।

জানাযায়, বৃহস্পতিবার সিলেটে বিভাগে ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৬টি পজিটিভ আসে। এর মধ্যে সুনামগঞ্জেরই ৮ জনের করোনা ফলাফল পজেটিভ আসে।  তাদের  মধ্যে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের একজন চিকিৎসক, জামালগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ কামলাবাজ এলাকায় ঢাকা ফেরত দুই শিশু, শাল্লা উপজেলার হবিবপুর ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের প্রাণ আরএফল গ্রুপের গাড়ির চালক (২৯), বাহারা ইউনিয়নের ইয়ারাবাদ গ্রামের এক যুবক(২৯) এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আউটসোসিংয়ে নিয়োগ পাওয়া গাড়ির চালক (২৩), ছাতক উপজেলার মন্ডলীভোগ এলাকার এক যুবক (৩৫) এবং দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের চিকারকান্তি গ্রামের এক যুবক(২৩) করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন।

সিভিল সার্জন কার্যালয় আরো জানায়, সুনামগঞ্জে নতুন করে যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের মধ্যে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার ও জামালগঞ্জ উপজেলার এবং শাল্লা উপজেলা প্রাণ আরএফএল গ্রুপের গাড়ির চালক ঢাকা থেকে এসেছিলেন। তাদের প্রত্যেকেই নমুনা সংগ্রহ করা হলে রিপোর্ট পভেটিভ আসে। তাছাড়া বাকিদের বাহির থেকে আসার কোন তথ্য এখনো পাওয়া যায়নি।

সিভিল সার্জন ডা. শামস উদ্দিন বলেন, একজন চিকিৎসকসহ সুনামগঞ্জে নতুন করে আরও ৮ জন আক্রান্ত হয়েছে। আমরা তাদের আইসোলেশনে নিয়ে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছি। তাদের মধ্যে কয়েকজন ঢাকা ফেরত তাই আমরা তাদের পরিবারেরও নমুনা সংগ্রহ করবো।

এ সময় তিনি সবাইকে বাড়িতে থাকা এবং জরুরী প্রয়োজনে বাইরে এলে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য অনুরোধ করেন।

উল্লেখ্য, বুধবার সুনামগঞ্জে আরো ৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত করা হয়। এর আগে সুনামগঞ্জের সদর উপজেলার বেরীগাঁওয়ে এক নারী ও দোয়ারাবাজার উপজেলার চণ্ডিপুর গ্রামের এক নারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া ঢাকা থেকে পালিয়ে আসা অপর এক করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিকে সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ