৬০ দিনের জন্য বন্ধ হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিনকার্ড

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, তার অভিবাসন নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত ৬০ দিনের জন্য কার্যকর হবে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যারা স্থায়ীভাবে অভিবাসনের জন্য আবেদন করেছেন এ সিদ্ধান্ত শুধু তাদের ক্ষেত্রে বলবৎ হবে।

ট্রাম্প দাবি করেছেন, এই পদক্ষেপ নেওয়ার ফলে করোনাভাইরাস মহামারিতে তৈরি হওয়া সঙ্কটে আমেরিকান নাগরিকদের কর্মসংস্থান সুরক্ষিত থাকবে।

সমালোচকদের মতে, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হওয়ার অভিযোগ ওঠায় এখন অন্যদিকে মনোযোগ সরিয়ে নিতে চাইছেন। সোমবার রাতে ‘সব ধরণের অভিবাসন’ বন্ধ করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করলেও পরে কয়েকজন ব্যবসায়ী নেতার সমালোচনার শিকার হয়ে খামারের শ্রমিক, হাই টেক কারখানার কর্মীদের মত কিছু বিশেষ খাতের অভিবাসী শ্রমিকদের নিষেধাজ্ঞার বাইরে রাখেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

হোয়াইট হাউজে করোনাভাইরাস সম্পর্কিত প্রেস ব্রিফিং এর সময় ট্রাম্প বলেন, অস্থায়ী ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে কর্মরত থাকা ব্যক্তিদের ওপর এই সিদ্ধান্তের কোনো প্রভাব পড়বে না।

তিনি জানান, সিদ্ধান্তের নির্বাহী আদেশ বুধবারে স্বাক্ষর করা হতে পারে এবং মার্কিন অর্থনীতির গতিবিধির হিসেবে এই নিষেধাজ্ঞা ‘বেশ দীর্ঘায়িত’ হতে পারে।

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবে ২ কোটির বেশি অ্যামেরিকান তাদের চাকরি হারিয়েছে এবং প্রেসিডেন্ট বলেছেন তারা যেন তাদের কর্মসংস্থান ফিরে পায়, তা নিশ্চিত করা সরকারের ‘পবিত্র দায়িত্ব।’

“ভাইরাসের কারণে চাকরি হারানো অ্যামেরিকানদের জায়গায় যদি বিদেশি অভিবাসী শ্রমিকরা কাজ পায়, তাহলে তা অ্যামেরিকানদের প্রতি অন্যায় হবে।”

তিনি বলেন, আমরা মার্কিন কর্মীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে চাই এবং আমি মনে করি ভবিষ্যতে আমরা তাদের সুরক্ষার প্রতি আরো বেশি জোর দেব।

বিবিসি বলছে, প্রেসিডেন্টের এই আদেশ বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে আইনি জটিলতা তৈরি হতে পারে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ