ফেনসিডিলসহ কলেজ শিক্ষক আটক

করোনা সংক্রমণ রোধে মোড়ে মোড়ে বিজিবির বসানো কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনী ভেদ ফেনসিডিলের চালান পাচারের সময় বেনাপোল সীমান্ত থেকে ৮২ বোতল ভারতীয় ফেনসিডিল ও একটি মোটরসাইকেলসহ বরিশাল সরকারি মডেল স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক নজরুল ইসলাম সুমন (৪৪) কে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা।

সোমবার (২০) বেলা ১২টার সময় বেনাপোল পোর্ট থানার শিকড়ী বটতলা থেকে তাকে আটক করে বেনাপোল বিজিবি কোম্পানী সদরের সদস্যরা ।

আটক নজরুল বরিশালের সদর উপজেলার মকবুল আহমেদের ছেলে।

বিজিবি জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে বেনাপোল সীমান্তের শিকড়ী বটতলা এলাকা থেকে মোটরসাইকেলসহ সুমনকে আটক করা হয়। পরে তার কাছে থাকা একটি স্কুল ব্যাগ তল্লাশি করে ৮২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। তিনি পুটখালী সীমান্ত থেকে ফেনসিডিলের এ চালানটি নিয়ে বরিশালে যাচ্ছিলেন।

আটক নজরুল ইসলাম সুমন জানান, তারা ৬ জন বরিশাল থেকে মোটরসাইকেলে করে বেনাপোলে এসে ফেনসিডিল নিয়ে বরিশাল যাচ্ছিলো। তার ৫ সহযোগীরা এ সময় ফেনসিডিল নিয়ে পালিয়ে গেলেও তিনি আটক হন বিজিবির জালে।

তার সহযোগীরা হলেন, আইনজীবী আলম রশীদ লিখন (৪২), ডাক্তর মিঠু (৩৫), ব্যাংকার ডোনা (৩৫), ব্যবসায়ী হেলাল উদ্দিন বুলেট (৩৮) ও মনির হোসেন (৪০)। তারা নিয়মিত বেনাপোলে এসে ফেনসিডিল নিয়ে যেত বরিশালে।

যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. সেলিম রেজা জানান, একটি ফেনসিডিল পাচার চক্র বরিশাল থেকে বেনাপোলে এসে ফেনসিডিল নিয়ে যাওয়ার সময় একজনকে আটক করা হয়েছে। আটক ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এলাকাবাসী দাবি করেন, করোনার মধ্যে এভাবে ভারত থেকে ফেনসিডিল আসতে থাকলে সীমান্তে করোনা ঝুঁকি বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা আছে। কারণ ভারত করোনার উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। তারা বিজিবিকে ফেনসিডিল আটকে সাধুবাদ জানান এবং সেই সাথে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহবান জানান।

যুগান্তর

এ বিভাগের আরো সংবাদ